গ্রামের মানুষ আমাকে অনেক ভালোবাসে : শিরিন শিলা

0

বিনোদন প্রতিবেদক : করোনাভাইরাস আতঙ্কে আজ সারাদেশে। প্রাণঘাতি এই ভাইরাস নিয়ে সরকার ও প্রশাসনের পাশাপাশি দেশের শোবিজ অঙ্গনের তারকারাও নানাভাবে মানুষকে সচেতন করে যাচ্ছেন। নিচ্ছেন নানা পরামর্শ। এখনো বন্ধ দেশের চলচ্চিত্রের সমস্ত কার্যক্রম। এছাড়াও বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ সকল অফিস আদালত।

করোনাভাইরাস নিয়ে তারকারা নানান ধরনের সচেতনা মূলক পোষ্ট দিচ্ছেন তাদের ফেসবুকে। করোনা সংক্রমণ এড়াতে সবাইকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলার পাশাপাশি নিয়মিত হাত ধোঁয়ার পরামর্শ দিয়েছেন একঝাঁক তারকা। এছাড়াও সবাইকে মুখে মাস্ক ব্যবহার করার জন্য অনুরোধও করেছেন তাঁরা।

করোনার প্রভাবে ‘ঘরবন্দী’ অস্বচ্ছল শিল্পীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন অনেকেই। এছাড়াও তারকারায় রাস্তায় নেমে পাশে দাঁড়িয়েছেন দরিদ্র মানুষের। তারই ধারাবাহিকতায় এবার দরিদ্র মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছেন’চিত্রনায়িকা শিরিন শিলার।

করোনার এই সময়ও গ্রামের অসচ্ছল মানুষের পাশে দাঁড়াতে ভোলেননি শিরিন শিলা। তিনি নিজ উদ্যোগে তার গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের ২৫০ জন অসচ্ছল মানুষের মধ্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করেছেন। ঈদ উপলক্ষে দিয়েছেন পোলাওয়ের চাল, সেমাই, চিনি।

এ প্রসঙ্গে চিত্রনায়িকা শিরিন শিলা বলেন, ‘আমি বড় হয়েছি রূপগঞ্জের তারাবোতে। গ্রামের মানুষ আমাকে অনেক ভালোবাসে, আমিও অনেক ভালোবাসি তাদের। সময় পেলেই সেখানে ছুটে যাই। আনন্দের সঙ্গে সবাইকে নিয়ে সময় কাটাই। করোনার সময়ও আমি সবার পাশে থাকতে চেয়েছি। নিজের সাধ্যমতো ২৫০ পরিবারকে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী দিয়ে সহযোগিতা করেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি ছোটবেলায় অনেকের বাসায় গিয়ে সেমাই খেয়েছি। করোনার এই সময় কারো কোনো কাজ নেই। তাই ঈদে সেমাই কিনে খাওয়ার সামর্থ্যও হারিয়েছেন অনেকে। বিষয়টি মাথায় রেখে আমি সবাইকে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর পাশাপাশি পোলাওয়ের চাল, সেমাই, চিনি দিয়েছি। তাদের মুখের হাসি আমাকে অনেক আনন্দ দিয়েছে। তবে বাড়ি থেকে ফেরার সময় অনেক করুণ মুখও দেখেছি, তখন খারাপ লেগেছে। আমার যদি সামর্থ্য থাকত, তবে সবার পাশে দাঁড়াতে পারতাম।’

উল্লেখ, বাংলা চলচ্চিত্রের এক সম্ভাবনাময়ী নায়িকা শিরিন শিলা। ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত ‘হিটম্যান’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেন। বর্তমানে তিনি চলচ্চিত্রের পাশাপাশি বিজ্ঞাপন ও মিউজিক ভিডিওতে কাজ করছেন।